অপেক্ষাতে তোমার জন্য

ভাবনা হারায় মেঘে...





অপেক্ষাতে তোমার জন্য
রোদ ফুরিয়ে যায়,
অপেক্ষাতে ক্লান্ত দুপুর
রোজ হারিয়ে যায়।


ফাগুন বিকেল জানলা ছেড়ে
পাখনা মেলে দূরে,
অপেক্ষাটা যায় থেকে যায়
মড়চে পড়া পাঁজরে...


অপেক্ষাতে তোমার জন্য
বৃষ্টি কতো ঝরে,
যায় উড়ে যে ভাবনা হাজার
ধূসর মেঘের ভীড়ে।


তুমি তবু ডাক শুনোনা
করোনা তো মনে,
ব্যথার দহন বেড়েই চলে
হৃদয় গহীনে..

আমার আকাশ সাদা কালো


আকাশ থাকুক বুকের কাছাকাছি। একেকটা বুক ধারন করুক হাজারটা আকাশ। এই প্রত্যাশা- এই আশায় মুখরিত হোক বাতাস...




আমার আকাশ সাদা কালো
মেঘে ভরা দিগন্ত
তোমার আকাশ রঙের আধার
এক কথাতে দারুন তো!
হাজার রঙের পাখির উড়াল
তোমার আকাশজুড়ে
আমার আকাশ শুণ্য সারাদিন
ধূসর মেঘের ভিড়ে।


আমার যতো সবুজ পাতা
হলুদ রঙে ভরা
তোমার সবুজ গাঢ় খুবই
সবার নজর কাড়া।
কচি সবুজ ঘিরে থাকে
তোমায় সারাবেলা
আমার আমি বুঝি ভীষণ
হলুদ রঙের জ্বালা।

আহ্লাদী রাত


ঘুম হারানোর পরে...


ঘুমপোড়ানো রাত্রিগুলো আহ্লাদী ভীষন
দুচোখজুড়ে অনেকদিনের ভুলের আবাসন।
মন খারাপের তিন বেলারা দূর ভ্রমনের পথে
খুজতে গিয়েই হারাই তোমায় জীবন টানার রথে।

চোখ বুজে কেউ স্বপ্ন বুনে, বুক চেপে কেউ হারায় তা
জলে ভিজে জুবুথুবু মাথায় রঙিন ছাতা।
রোদ লুকোবার ইচ্ছেগুলো চরম রকম বোকা
বদ্ধ ঘরে ঘুম হারাবার কালে চোখে রোদের টোকা।

ধূলোমলিন পায়ের পাতা চোখের কাছে এসে
ঠোট চাটিয়ে ফেটে পড়ে ভূতুরে উল্লাসে।

মেঘগুলো সব লোভ দেখিয়ে বৃষ্টি হবার
ব্যালকনিতে দাঁড় করিয়ে দেয় যে করে রাত্রি সাবার!

চিকচিকে জল ঠোটের কোনে চাঁদের আলো
কখন যেনো ক্লান্তি রেখে রাত পোহালো।
জিভ শুকিয়ে কাঠ হয়ে যে গেলোই শেষে
জলের আধার চৈত্রেরই মাঠ এক নিমিষে।